International

বিভিন্ন মুসলিম দেশের প্রায় দুইশত প্রতিযোগীকে হারিয়ে তুরস্কে প্রথম হলেন বাংলাদেশি তরুণ হাসান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইসলামিক কো-অপারেশন ইয়ুথ ফোরাম কর্তৃক আয়োজিত “আইসিওয়াইএফ রমজান ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতায় ২০১৯”-এ প্রথম স্থান অর্জন করেছেন বাংলাদেশি তরুণ মুহাম্মদ হাসান কবির। তিনি বিভিন্ন মুসলিম দেশের প্রায় দুইশত প্রতিযোগীর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে দেশের জন্য এ সম্মান বয়ে এনেছেন।

মুহাম্মদ হাসান কবির বর্তমানে তুরস্কের সেলজুক বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং জনপ্রশাসন বিষয়ে অধ্যয়রত মুহাম্মদ হাসান কবির লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি নারিশ্চা গ্রামের আল্লামা ফৌজুল কবিরের পুত্র।

লোহাগাড়া উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান এম. ইব্রাহিম কবির ও মরক্কোর আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয় আগাদীর’র আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের পরিচালক ও সহকারী অধ্যাপক এবং গ্লোবাল পীস প্লানেট (জিপিপি)-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মাহীর ছোট ভাই।

মুহাম্মদ হাসান কবির বলেন, ‘আইসিওয়াইএফ রমজান ফটোগ্রাফি প্রয়োগিতায় ২০১৯’-এ প্রথম স্থান অর্জন করায় মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এছাড়াও যারা দোয়া ও সমর্থন করেছেন তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানাই।

নেত্রকোনায় এক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী (২০) ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। সোমবার বিকালে উপজেলার গড়াডোবা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। জড়িত তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ওই কিশোরী একই ইউনিয়নের আউজহাটি শিবপুর গ্রামের ফুফুর বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফিরছিল। বিকাল তিনটার দিকে সাখরা গ্রামের কাছে পৌঁছলে চারজন যুবক প্রথমে তাকে স্থানীয় একটি জঙ্গলে এবং পরে পুবাইল গ্রামের মুন্নাফ মিয়ার গোয়াল ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। টের পেয়ে স্থানীয়রা মেয়েটিকে উদ্ধার করে। খবর পেয়ে নেত্রকোনার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (কেন্দুয়া সার্কেল) মাহমুদুল হাসান ও কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানসহ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ সময় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত একই ইউনিয়নের চন্দলাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে কাজল (৪০), আব্দুর রহমানের ছেলে হুমায়ূন (২৫) ও রইছ উদ্দিনের ছেলে জামরুলকে (২৮) আটক করে।

ওসি জানান, ওই কিশোরীকে মঙ্গলবার সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Comment here