Others

দেখেনিন কিভাবে হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হওয়া স্মার্টফোন খুঁজে পাবেন!

আজকালকার সময়ে আমাদের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত বস্তু হল আমাদের স্মার্টফোন। আর এই স্মার্টফোনে থাকে নানা ব্যক্তিগত তথ্যের ভান্ডার। সকল বন্ধু বান্ধব বা গুরুত্বপূর্ন যোগাযোগ নাম্বার, ব্যাঙ্কের একাউন্টের বা গ্যাসের একাউন্টের সঙ্গে লিঙ্ক।

আবার যদি আমরা নেট ব্যাংকিং করে থাকি তাহলে তার জন্য বিভিন্ন সময়ে যে OTP ব্যবহার করে থাকি তার সকল মেসেজ। এছাড়াও একান্ত ব্যক্তিগত ছবি, বা ভিডিও। অর্থাৎ আপনার স্মার্টফোন আপনার সকল তথ্য সঞ্চয় করে রাখে।

তাই প্রত্যেকের কাছেই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রয়োজনীয় হল তাদের স্মার্টফোন। কিন্তু অনেক সময় ভিড়ের মধ্যে পথে,ঘাটে, বাজারে, বাসে বা ভিড়ে থাকা ট্রেনে আপনার সাধের স্মার্টফোন চুরি হয়ে যায় বা হারিয়ে যায়। আর তারপর থেকে আপনার দুশ্চিন্তার শেষ থাকে না।

প্রথমত যা সবচেয়ে ভয়ের বিষয় তা হল আপনার স্মার্টফোন ব্যবহার করে নানা অসামাজিক কর্ম করা হতে পারে। আপনার ফোন থেকে অন্য কাউকে হুমকি দেওয়া বা মহিলাদের প্রতি গালিগালাজ করা ইত্যাদি হয়ে থাকলে আপনি পুলিশ দ্বারা হেনস্থা হতে পারেন। তাই আমরা প্রথমেই নিকটবর্তী থানায় গিয়ে ফোন হারিয়ে যাওয়ার অভিযোগ জানিয়ে সিম ব্লক করতে অনুরোধ করি।

কিন্তু আপনি কি জানেন, আপনার হারিয়ে বা চুরি যাওয়া ফোন আপনি আপনার ঘর থেকেই ট্র্যাক করতে পারেন? এমনকি আপনি সিম ব্লক করতেও পারবেন এবং আপনার মোবাইলে থাকা আপনার গোপনীয় ব্যক্তিগত তথ্য মুছে ফেলতেও পারেন। আজকের প্রতিবেদনে আমরা সেই বিষয় নিয়ে আপনাদের সবকিছু জানাবো।

সাধারণত বর্তমানে সবার স্মার্টফোন ট্র্যাক করার জন্য প্রথমেই যা চায় তা হল একটি সক্রিয় ডাটা বা ইন্টারনেটে কানেকশন। তাছাড়াও আপনার স্মার্টফোনে জি পি এস কানেকশন অন অবস্থায় থাকতে হবে। আর আপনাকে আপনার স্মার্টফোনে থাকা গুগল একাউন্টে লগ ইন করতে হবে।

গুগল একাউন্ট আপনার হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হয়ে যাওয়া স্মার্টফোন ট্র্যাক করতে দারুন ভাবে সাহায্য করে যদি আপনি এই একাউন্টে সাইন ইন করতে পারেন অন্য কোন মোবাইল থেকে। তবে তার জন্য আপনাকে প্রথমেই যা করতে হবে আপনার ফোন “সেটিংসে” গিয়ে আপনাকে অন করে রাখতে হবে “ফাইন্ড মাই ডিভাইস”অপশনটি।

কীভাবে “ফাইন্ড মাই ডিভাইস”অপশনটি অন করবেন ? Settings>>security>>lock screen>>Device Administrators>>find my deviceআপনাকে মনে রাখতে হবে এই “Find My Device”অপশনটি সবসময় অন থাকে।তারপর আবার আপনার মোবাইলের settings অপশনে যান এবং সেখানে গিয়ে settings>>turn your location on>>Switch it to High Accuracyকরে রাখুন।

এবার আপনি যান Google location Historyতেএবং সেখান Use Location History অপশনটি অন করে রাখুন।একই রকম ভাবে আপনার ফোনের সেটিংসেও একই কাজ করে রাখুন।এই সমস্ত পদক্ষেপ আপনি করে রাখলে আপনি আপনার স্মার্টফোনকে সহজেই ট্র্যাক করতে পারবেন।

আপনার ফোনটি কীভাবে ট্রাক করবেন ? প্রথমেই অন্য কোন মোবাইল বা ল্যাপটপ বা কম্পিউটার থেকে android.com/find এ গিয়ে sign in করুন নিজের গুগল একাউন্টে। একবার খুলে গেল আপনি দেখতে পাবেন আপনার গুগল একাউন্টের সঙ্গে যে সমস্ত ডিভাইস কানেক্ট করা আছেআপনার হারিয়ে যাওয়া বা চুরি যাওয়া মোবাইলটি কানেক্টেড আছে কিনা দেখে নিন।

সেখানে আপনার ডিভাইস নামের তিনটি অপশন পাবেন। তাছাড়া গুগল ম্যাপের সাহায্যে আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইলের বর্তমান অবস্থান কোথায় তা জানতে পারবেন সহজেই যদি লোকেশন অপশনটি অন করা থাকে আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইলে। মোবাইলটি যদি অফ করা থাকে বা লোকেশন অফ করা থাকে তাহলে আপনার ফোনের শেষ কোথায় অবস্থান ছিল তা আপনি জানতে পারবেন।

এরপর কী করতে হবে ? প্রথম অপশনটি হল “play sound”এই অপশনে ক্লিক করে আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইলে পাঁচ মিনিট বা তার বেশি সময় ধরে একটা রিংটোন বা শব্দ বেজে উঠবে। যার ফলে আপনি সহজেই বুঝে উঠতে পারবেন আপনার খুঁজে না পাওয়া মোবাইলটি কোথায় রয়েছে। এটা সাধারণত বাড়িতে যদি মোবাইল খুঁজে না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে খুবই উপকারী।

দ্বিতীয় অপশনটি হল আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইলটি সুরক্ষিত করা। এক্ষেত্রে যদি আপনার স্মার্টফোনটি ভালোভাবে লক থাকে না তাহলে আপনি একটি উঁচু মানের লক সেট করতে পারেন বাড়ি থেকে অন্য কোন মোবাইল থেকে বা ল্যাপটপ থেকে আপনার হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হওয়া মোবাইলে।যদিও এক্ষেত্রে আপনি ফিঙ্গারপ্রিন্ট বা ফেস লক করতে পারবেন না।

তৃতীয় এবং শেষ অপশনটি হল মোবাইলের সমস্ত ডাটা মুছে ফেলা।এটা তখনই করা দরকার যখন আপনি জানতে পারছেন যে আপনি আপনার হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হওয়া মোবাইল আর ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই ।এইসব যদি কিছু করা না যায় তাহলে আপনি পুলিশের কাছে গিয়ে আপনার হারিয়ে যাওয়া মোবাইল সম্পর্কে অভিযোগ জানান এবং উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে বলুন।

ফোন ব্লক করতে হলে কী করতে হবে ? আপনার হারিয়ে যাওয়া বা চুরি হয়ে যাওয়া ফোন ব্লক করতে চাইলে যা দরকার হবে তা হল আপনার স্মার্টফোনের IEMI নাম্বার।আপনি আপনার সার্ভিস প্রোভাইডারকে জানিয়ে আপনার ব্যবহৃত সিম ব্লক করতে পারেন।

এই ব্লক করার সময় আপনার মোবাইলের IEMI কোড জানাতে হবে।আপনি আপনার মোবাইলের IEMI কোড সহজেই জানতে পারেন *#06#টিপে।তাই ডাইরি বা অন্য কোথাও সবসময় লিখে রাখুন এই IEMI নাম্বার যা পরবর্তী সময়ে আপনার কাজে আসতে পারে।

এছাড়াও আপনার ডিফল্ট সেটিংস থেকে আপনার PIN বা PUK (Personal Unlock Key)পরিবর্তন করে রাখতে পারেন।PIN হল চার ডিজিটের একটি সংখ্যা যা আপনার ফোন সুইচ অফ করার পর অন করলে আপনাকে দিতে হয় ফোন খোলার জন্য।

বেশিরভাগ ফোনের ক্ষেত্রে ডিফল্ট কোড দেওয়া থাকে 0000।এটাকে পরিবর্তন করে নিজের পছন্দমতো একটি চার অঙ্কের সংখ্যা বসান যা আপনি মনে রাখতে পারবেন।এটা করার জন্য আপনাকে settings এ গিয়ে security on your phone এ গিয়ে আপনার PIN চেঞ্জ করে নিন।

আপনার ফোন চুরি হওয়ার পর যদি কেউ তিনবার মোবাইলের PIN ভুল দেয় তাহলে আপনার সিম স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্লক হয়ে যাবে।একমাত্র আপনার PUK আপনাকে আপনার ব্লক হওয়া সিম খুলতে সাহায্য করতে পারে।এই কোড সাধারণত মোবাইলের সঙ্গেই পাওয়া যায়।যদি না জেনে থাকেন তাহলে আপনার সার্ভিস প্রোভাইডারকে ফোন করে জেনে নিন।

Comment here